Aadhar Card Loan Nin | আধার কার্ড দিয়ে লোন নিন

আধার কার্ড এখন আমাদের জীবনের এক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নথি। ভোটার কার্ডের মতো আধার কার্ড ও আমাদের পরিচয়পত্র বর্তমান যুগে।কিন্তু আপনি কি জানেন এই আধার কার্ড এখন শুধু আর আপনার জীবনে পরিচয়পত্র বা একটা প্লাস্টিকের নথি নয়, এই কার্ড এখন আপনার স্বপ্ন পূরণের চাবিকাঠি। না ভুল নয় ঠিক এ দেখছেন এই কার্ডের মাধ্যমেই পেতে পারেন আপনার স্বপ্ন পূরণের অর্থ। বর্তমানে আধার কার্ডকে সম্বল করে পাওয়া যাচ্ছে কয়েক লক্ষ টাকা লোন।নিয়ম অনুসারে কোনো ব্যক্তি ব্যক্তিগত লোন নিতে চাইলে ‘সিকিউরিটি মানি’ জমা রাখতে হয় । তবে আধার কার্ড দিয়ে লোন নিতে গেলে কোনো সিকিউরিটি মানি লাগবে না। কিন্তু, আপনার কার্ডের সমস্ত তথ্য সঠিক হতে হবে ভুল প্রমাণিত হলে কোনওভাবেই লোন পাবেন না। তাই লোন আবেদনের আগে কার্ডের সবকিছু খতিয়ে দেখে নিতে হবে আপনাকে। তাহলে চলুন দেখেনি কিভাবে এই লোন আপনি পেতে পারেন।

Aadhar Card Loan কারা কারা পেতে পারেন ?

Aadhar Card Loan নিতে চাইলে ওই ব্যক্তির ন্যূনতম বয়স হতে হবে ২৩ বছর। এক্ষেত্রে abedonkari ব্যক্তির বয়স ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে হলে হবে না লোন। কারন বয়স বেশি হলে আবেদন গ্রহণ করবে না ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ। চাকুরীজীবি বা ব্যবসায়ী সকলেই আবেদন করতে পারবেন।

আরো জানান :- ইউকো ব্যাংক ক্রেডিট কার্ড এপ্লাই কিভাবে করবেন

Aadhar Card Loan কারা দেবে?

যেকোনো সরকারি বা বেসরকারি ব্যাঙ্ক আপনাকে এই লোন দেবে।

কি কি ডকুনেন্টস লাগবে Aadhar Card Loan এর জন্য?

আধার এবং প্যান কার্ড এই লোনের ক্ষেত্রে আপনার গুরুত্বপূর্ণ নথি।এই ডকুমেন্টস দিয়েই ব্যাঙ্ক আপনার kyc (নো ইওর কাস্টমার ) প্রড়িয়া শুরু করবে। আধার এ এক্ষেত্রে আপনার প্রধান ডকুমেন্ট।

কিভাবে আপনি এই Aadhar Card Loan এর জন্য আবেদন করবেন?

প্রথমে আপনাকে যে ব্যাঙ্কে লোন নেবেন সেই ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটে গিয়ে ইমেইল আইডি এবং ফোন নং দিয়ে রেজিস্টার করে নিন ফোন এ otp দিয়ে আপনার নম্বরটি ভেরিফাই করে নিন। এরপর যে পেজ টি খুলবে সেখানে পার্সোনাল লোন অপসনটি সিলেক্ট করবেন। এরপর আপনি আধার কার্ড এর মাধ্যমে লোন নিতে পারবেন কিনা সেটা ব্যাঙ্কের সাইট থেকেই জেনে যাবেন।এরপর কি কারণে লোন নিচ্ছেন সেই অপশন চুস করে সেলফ এমপ্লয়েড সিলেক্ট করবেন। পরের পেজ এ মান্থলি ইনকাম পুট করবেন।এর পরের পেজ এ আপনার বেডিক ইনফরমেশন অর্থাৎ নাম, প্যান নং, বাবার নাম, মায়ের নাম, জন্ম তারিখ লিখে পরের পেজ এ যেতে হবে।পরের পেজ এ এড্রেস প্রুফ এর পিন কোড দিতে হবে।পিন কোড লেখা হয়ে গেলে এড্রেস লেখার জন্য পেজ খুলে যাবে সেখানে আপনার এড্রেস প্রুফ এর জন্য ডকুমেন্টস সিলেক্ট করতে হবে এবং পুরো এড্রেস লিখতে হবে।এরপরের পেজ এ আপনাকে ডকুমেন্টস সাবমিট করতে হবে। যে এড্রেস প্রুফ আছে সেগুলোই ওই পেজ এ সাবমিট করবেন। সাবমিট করে ওকে করে দিলেই প্রসেসিং শুরু হয়ে যাবে এবং কিছু সময় আপনাদের wait করতে হবে আপনাদের লোন তা এপ্লিকেবল হবে কিনা জানার জন্য।এরপর আসবে কত বছরের জন্য লোন নিতে চান। সেটা সিলেক্ট করার পর আসবে নেট ব্যাঙ্কিং একাউন্ট ভেরিফিকেশন। সেটা চেক করবে ব্যাঙ্ক। ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং প্রভাইড করে দেবেন। এরপর একটা call আসবে আপনার কাছে এবং এর দুদিনের মধ্যে আপনার লোনের এমাউন্ট যতো তাড়াতাড়ি সম্ভব ব্যাঙ্ক থেকে আপনার একাউন্ট এ পাঠিয়ে দেবে।

Aadhar Card Loan নিতে গেলে কিছু কথা মাথায় রাখবেন :-

আধারের তথ্য যেন সব নির্ভুল থাকে এক্ষেত্রে ভুল তথ্য আপনার লোন পেতে বাধার সৃষ্টি করবে বলাবাহুল্য তথ্য ভুল থাকলে লোন পাবেন না।

আপনার আগে কোনো লোন tথাকলে আপনি লোন পাবেন না।

সিভিল স্কোর 750 এর নিচে হলে লোন পাবেন না।

আশা করছি এই তথ্যগুলো আপনাদের সহযোগিতা করবে।

Leave a Comment